এটা মূলত সিস্টেমের অংশ। আমরা এই সিস্টেমে কেবল পরীক্ষাটাই নিচ্ছি। আপনি যদি সব পরীক্ষা শেষ হবার আগে এই বাটন দেখতে পেয়ে ক্লিক করে বসেন তাহলে বাকী পরীক্ষা গুলো দিতে পারবেন না। কারন আপনি বলেছেন আপনি কোর্স শেষ করে ফেলেছেন, তাই আর কোন কন্টেন্ট আপনার জন্য দেখা যাবেনা। তাই এই বাটনটাতে ক্লিক করা যাবেনা, কখনোই না। এটাতে ক্লিক করার দরকার নাই। সবগুলো পরীক্ষা দেয়াই যথেষ্ট হবে।

এই পরীক্ষার গুরুত্ব অপরিসীম। সার্টিফিকেট নিশ্চিত করার জন্য ৯০% ক্লাসে উপস্থিত থাকার পাশাপাশি, সবকটা পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করা সমান গুরুত্বপূর্ণ। তারাই সার্টিফিকেট পাবেন যারা সব পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করবেন। নাম্বার সামান্য কম পেলে সমস্যা হবেনা। আর ক্লাসের আলোচ্য বিষয় থেকেই প্রশ্ন হয়ে থাকে। তাই ভয়ের কিছু নেই। পরীক্ষা সবাই এনজয় করবেন।

এই অবস্থায় আপনি [email protected] এই ইমেইল এড্রেসে একটা মেইল করবেন, মেইলে অবশ্যই আপনার নাম, ইউজার নেম, রোল নাম্বার , ব্যাচ নাম এবং নাম্বার উল্লেখ করে, সমস্যাটি লিখে দিলে আপনার বর্তমান আইডিটি ডিলেট করে ইমেইলের রিপ্লাইতে জানিয়ে দেয়া হবে। তখন আপনি আবার নতুন করে রেজিস্ট্রশন করে, ভিডিওতে দেখানো পদ্ধতি ফলো করে পরীক্ষা দিতে পারবেন।

কিভাবে পরীক্ষা দিবো?

পরীক্ষা দেয়ার পদ্ধতি খুব সহজ, অনলাইনে আমাদের পরীক্ষা হয়ে থাকে সাধারণত। ক্লাসে ঘোষণা দেয়ার পর পরীক্ষা দিতে হয়। https://ebanijjo.gov.bd/ এই ওয়েবসাইটের মাধ্যমে আমরা পরীক্ষা নিয়ে থাকি সাধারণত। এই ওয়েবসাইটে কিভাবে পরীক্ষা দিতে হবে তার একটা পূর্ণাংগ গাইডলাইন নিচের ভিডিওতে দেয়া আছে, সবাইকে পরীক্ষার ঘোষণার আগেই মনোযোগ সহকারে ভিডিওটা দুইবার অন্তত দেখতে হবে, তাহলে পরীক্ষা সংক্রান্ত পথচলা সহজ হয়ে যাবে।

আপনি যদি দেখেন যে পরীক্ষা সাবমিট করার পর আপনাকে দেখিয়েছে যে কত পেয়েছেন তাহলে নিশ্চিত থাকুন আমাদের কাছেও এসে গেছে।

এইজন্য শুরুতেই রেজিস্ট্রেশন করার সময় পাসোয়ার্ড লিখে রাখা উচিৎ। তাও ভুলে গেলে অটোমেটিকালি পাসোয়ার্ড রিসেট করা যায়। এতে যদি কারো সমস্যা হয় বা না পারেন তাহলে ইউজার নেম, ব্যাচ নাম এবং নাম্বার সহ লিখে সমস্যাটা [email protected] এই ইমেইলে মেইল করে বললে পাসোয়ার্ড পরিবর্তন করে নতুন পাসোয়ার্ড মেইলে জানিয়ে দেয়া হবে।

যেদিন ঘোষণা করা হবে সেদিন রাত ১২ টার ভিতরে। কারন পরের দিন সকালে প্রথম কর্মঘন্টায় রেজাল্ট মন্ত্রনালয়ে জমা দিতে হয়। এর পর দিলে আর এটা জমা হবেনা। ধন্যবাদ।

এক্ষেত্রে যেহেতু আপনি প্রথম এসেসমেন্ট অলরেডি দিয়ে ফেলেছেন তাই আইডি রিমুভ করা যাবেনা। পরীক্ষা সফলভাবে দেয়ার জন্য আপনাকে নতুন করে আরেকটা আইডি রেজিস্ট্রেশন করতে হবে। এই নতুন আইডি রেজিস্ট্রেশন করার সময় আগের ইউজার নেমের সাথে ১ যোগ করতে হবে, ইমেইল এর সাথে ১ যোগ করতে হবে। যেমন আপনার ইউজার নেম – 1219robin , তাহলে নতুন ইউজার নেম হবে 1219robin1, ইমেইল – [email protected], নতুন ইমেইল হবে – [email protected]

এভাবে নতুন করে রেজিস্ট্রেশন করে, আবার লগইন অবস্থায় টেক দিস কোর্সে ক্লিক করে, বাকী পরীক্ষাগুলো এই আইডি থেকে দিতে হবে। যে পরীক্ষা গুলো আগের আইডিতে একবার দেয়া হয়ে গেছে, সেগুলো আর দেয়ার দরকার নেই।

ওয়েবসাইটে যে কোন প্রশ্ন দেখার জন্য দুইটা শর্ত আছে, লগইন করা অবস্থায় থাকতে হবে এবং যার যার নিজস্ব কোর্সে এনরোল করা থাকতে হবে। কোর্স এনরোল করার জন্য কোর্সে প্রবেশ করে প্রথমেই ” টেক দিস কোর্স ” বাটনে ক্লিক করে নিতে হয়। এই সমস্যাটা যাদের হয়, তারা সাধারণত এই ভুলটাই করে থাকে, টেক দিস কোর্সে ক্লিক করতে ভুলে যায়। আপনার যদি এই সমস্যা হয়ে থাকে, লক্ষ্য করুন, কোর্সে গিয়ে এখনো টেক দিস কোর্স বাটনটি রয়ে গেছে।

কখনো কখনো রুটিনে পরীক্ষার জন্য নির্ধারিত সময় থাকে। তখন যদি আপনি পরীক্ষা দিতে পারেন তাহলে ভালো, ক্লাসে কানেক্টেড থেকে পরীক্ষা দিয়ে দিবেন। ক্লাসে কানেক্টেড না থাকলে সেই সেশনের এটেন্ডেন্স কাউন্ট হবেনা। কারো যদি একান্ত সমস্যা থাকে, তাহলে যেদিন পরীক্ষা ঘোষণা করা হবে সেদিন রাত ১২ টার ভিতরে পরীক্ষা দিয়ে দিতে হবে।

এটা নির্ভর করবে কত নাম্বারের পরীক্ষা নেয়া হবে। সাধারণত ৩০ নাম্বারের পরীক্ষা নেয়া হয় প্রতি এসেসমেন্টে। এমসিকিউ পদ্ধতির এই পরীক্ষায় ৬০ মিনিট সময় নির্ধারিত থাকে। ১৫ নাম্বারের পরীক্ষা হলে ৩০ মিনিট সময় নির্ধারিত থাকে। একবার স্টার্ট কুইজ বাটনে ক্লিক করলে টাইম কাউন্ট ডাউন শুরু হয়ে যাবে। সুতরাং স্টার্ট কুইজে ক্লিক করে অন্য কোন কাজে চলে গেলে সময় শেষ হলে অটোমেটিকালি কুইজ সাবমিট হয়ে যাবে।

অবশ্যই পারবেন, কেউ যদি কোন কারনে দিতে না পারেন তাহলে এসেসমেন্ট টু এর দিন এসেসমেন্ট ওয়ান সহ দিয়ে দিতে হবে, একই কথা প্রযোজ্য হবে এসেসমেন্ট থ্রি এর ক্ষেত্রেও।

খুবই রেয়ার প্রশ্ন, অল্প কয়েকজন করে থাকেন। এখানে রেজাল্ট নতুন করে দেয়ার কিছু নাই। সবাই পরীক্ষা দিয়ে সাবমিট করার সাথে সাথেই জেনে যাচ্ছেন কত পেয়েছেন। চাইলে কি কি ভুল করেছেন সেটাও দেখতে পারছেন। তাই আলাদা করে রেজাল্ট পাবলিশ করার কিছু নাই।

এই সমস্যাটা সাধারণত হয় দ্বিতীয় কিংবা তৃতীয় পরীক্ষার সময়ে। যদি আপনি ফিনিশ কোর্স বাটনে ক্লিক করে ফেলেন তাহলে। এইজন্য প্রথমত এই বাটনে ক্লিক করা যাবেনা সব পরীক্ষা শেষ করার আগে, ইনফ্যাক্ট কখনোই দরকার নাই ক্লিক করার। তাও যদি করে ফেলেন তাহলে কি করবেন?

এক্ষেত্রে যেহেতু আপনি প্রথম এসেসমেন্ট অলরেডি দিয়ে ফেলেছেন তাই আইডি রিমুভ করা যাবেনা। পরীক্ষা সফলভাবে দেয়ার জন্য আপনাকে নতুন করে আরেকটা আইডি রেজিস্ট্রেশন করতে হবে। এই নতুন আইডি রেজিস্ট্রেশন করার সময় আগের ইউজার নেমের সাথে ১ যোগ করতে হবে, ইমেইল এর সাথে ১ যোগ করতে হবে। যেমন আপনার ইউজার নেম – 1219robin , তাহলে নতুন ইউজার নেম হবে 1219robin1, ইমেইল – [email protected], নতুন ইমেইল হবে – [email protected]

এভাবে নতুন করে রেজিস্ট্রেশন করে, আবার লগইন অবস্থায় টেক দিস কোর্সে ক্লিক করে, বাকী পরীক্ষাগুলো এই আইডি থেকে দিতে হবে। যে পরীক্ষা গুলো আগের আইডিতে একবার দেয়া হয়ে গেছে, সেগুলো আর দেয়ার দরকার নেই।

এইজন্য একটু ধৈর্য্য ধরতে হবে, যারা সকল কার্যক্রম সফলভাবে সম্পন্ন করেছে তারা সার্টিফিকেট পাবে। একটু সময় লাগবে, আপনার শহরের সব ব্যাচ শেষ হলে তারপর দেয়া হয় সাধারণত। আপনাকে ফোনে সার্টিফিকেট দেয়ার প্রক্রিয়া জানানো হবে।